এডিস মশাঃ হাইকোর্টের তলবে এসে ব্যাখ্যা দিলেন সচিব হেলালুদ্দীন

এডিস মশাঃ হাইকোর্টের তলবে এসে ব্যাখ্যা দিলেন সচিব হেলালুদ্দীন

আগস্ট ১, ২০১৯ 0 By আরসিএন২৪বিডি.কম

ঢাকাঃ হাইকোর্টের তলবে এসে ব্যাখ্যা দিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ।

তিনি ব্যাখ্যাকরণ করনে এডিস মশা নির্মূলে ওষুধের কার্যকারিতা ও নতুন ওষুধ আনার বিষয়ে ।

বৃহস্পতিবার (১ আগস্ট) বিচারপতি তারিক উল হাকিম ও বিচারপতি মো. সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে তিনি এ ব্যাখ্যা দেন।

এদিন সকালে ‘এডিস মশা নিধনে বিদেশ থেকে কার্যকরী ওষুধ আনতে গড়িমসি’র বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে সচিব মো. হেলাল উদ্দিনকে তলব করেন হাইকোর্ট। আর সেই নির্দেশনায় দুপুরে হাজিন হোন হাইকোর্টে তিনি।

সচিব হাজির হওয়ার পর শুরুতেই আইনজীবী সাঈদ আহমেদ রাজা আদালতকে বলেন, ‘মশা নিধন নিয়ে মিটিং হয়েছে।

সমন্বিতভাবে মশা নিধনের চেষ্টা করছেন বলে তারা (সচিব) জানিয়েছেন।’

এরপর সচিব আদালতকে জানান, ‘শুরু থেকেই আমাদের মন্ত্রণালয় দুই সিটিকে মশা নিধনের জন্য বলেছিল।

এরপর থেকে মশা নিধন ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ চলমান রেখেছি।

এই ওষুধে মশা মারা যাচ্ছে না। তবুও আমরা মিটিং অব্যাহত রেখেছি। মিটিং করে আরেকটি ওষুধ আনার সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

তখন সচিবের কাছে আদালত জানতে চান, ‘এ ওষুধ আনার দায়িত্ব কার?’ জবাবে তিনি বলেন, ‘ওষুধ আনার বিষয়ে আমাদের মন্ত্রণালয় সুপারভাইজ করবে।

সে অনুযায়ী তারা প্রস্তুতিও নিয়েছে। এমনকি উত্তর সিটি নমুনাও সংগ্রহ করছে। ওষুধ আনতে লাইসেন্স করতে হবে।’

তখন আদালত বলেন, ‘কেন লাইসেন্স লাগবে? আপনারা অনুদান হিসেবে বা সরকার নিজের ক্ষমতা বলে ওষুধ আনবে।’ জবাবে সচিব বলেন, ‘খাদ্য মন্ত্রণালয় ওষুধ আনতে গেলে পারে। কিন্তু আমাদের (সিটি করপোরেশন) আনতে গেলে লাইসেন্স দরকার হয়। আমরা গত মাস থেকে সিটিতে মশা নিধনের কাজ শুরু করেছি।’

আদালত বলেন, ‘ঢাকা সিটির বাইরে হলে সেখানে মশা নির্মূল করবে কে?’ জবাবে সচিব বলেন, ‘আমরা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও দুই সিটির সঙ্গে কথা বলবো। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবো।

তারা আমাদের কাছে জনবল চেয়েছিল, আমরা তাও দিয়েছি।’

আদালত বলেন, ‘এসব ওষুধের কথা আমাদের শোনাবেন না। একে অন্যের বিরুদ্ধে দোষারোপ করলে হবে না।

আপনারা বলছেন— সিটি করপোরেশন আর সিটি করপোরেশন বলছে, আপনাদের কথা (ওষুদ আনার বিষয়ে)।

আপনারা আনলে সমস্যা কোথায়? আমাদের জানান, সরকার ওষুধ আনবে কিনা।’ এরপর আদালত ওষুধ আনার বিষয়ে সরকারের পদক্ষেপ জানতে চেয়ে সচিবকে সময় দেন।

এর আগে গত ২৫ জুলাই ওষুধের ডোজ বাড়িয়ে দিয়ে এডিস মশা নির্মূল ও ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে ৩০ জুলাই পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

এই সময়ের মধ্যে ওষুধ ব্যবহার করে মশা নিধন হয়েছে কিনা, সে বিষয়েও প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেছিলেন আদালত।

কিন্তু মশা নিধনে কার্যকরী ফল না পাওয়ায় গত ৩০ জুলাই এডিস মশা নিধনে কার্যকর ওষুধ কবে দেশে আসবে, তা সরকার এবং ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনকে আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার মধ্যে জানাতে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট।

 

আরসিএন২৪বিডি/ সময়: ২১১৫ আগষ্ট ০১, ২০১৯