পুনরায় নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে ইইউ সাংসদদের চিঠি

পুনরায় নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে ইইউ সাংসদদের চিঠি

ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯ 0 By আরসিএন২৪বিডি.কম

নিউজ ডেস্ক : বাংলাদেশে পুনরায় একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তিসহ চারটি দাবি করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র ও নিরাপত্তা কাউন্সিলের উচ্চ প্রতিনিধি ফেডেরিকা মোগেরিনির কাছে চিঠি দিয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের ১৯ সাংসদ।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি ইইউ এর ১৯ সাংসদ স্বাক্ষরিত এ চিঠি ফেডেরিকা মোগেরিনির কাছে পাঠানো হয়।

পুনরায় নির্বাচন ও খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে ইইউ সাংসদদের চিঠি

ইইউ সাংসদদের চিঠি

বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ১৯ সাংসদের সমন্নয়ে দেয়া এ চিঠির শুরুতেই বাংলাদেশের উন্নয়নের কথা বলা হয়েছে। এরপরই এসেছে গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা।

চিঠিতে ইইউ সাংসদরা, বাংলাদেশে নতুন ও স্বতন্ত্র নির্বাচন দেয়ার আহ্বান জানাতে বলেছেন।

নির্বাচনে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক রাখার প্রস্তাব করেছেন তারা যাতে করে বাংলাদেশে সহিংসতা ছাড়াই একটি গণতান্ত্রিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে।

এ চিঠিতে গত নির্বাচনে ১৭ জন নিহত অসংখ্য আহতের কথা উল্লেখ করেছেন। নির্বাচনের আগে ও পরে বিরোধীদলের অনেক নেতাকে আটক করার কথাও তারা চিঠিতে উল্লেখ করেছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিরোধী দলকে ভোট দিতে বাধা দেয়ার বিষয়ে ইইউ সাংসদরা তাদের চিঠিতে ইইউ উচ্চ প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন।

আরো উল্লেখ করেছেন ক্ষমতাসীনদের জাল ভোট প্রদানের কথা।

ইই্উ সাংসদরা বাংলাদেশের দুর্নীতির কথা তুলে ধরে ইইউ এর অনুদানের সঠিক খরচ নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

চিঠিতে তারা চারটি সুপারিশ তুলে ধরেছেন। সুপারিশ গুলো হলো :

প্রথমটি হল- বাংলাদেশে জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের উপস্থিতিতে পুনরায় নির্বাচন দিতে হবে।

দ্বিতীয় সুপারিশ হল– বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে।

তৃতীয় সুপারিশ হিসেবে তারা বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুদানের খচর কিভাবে ব্যয় হয়েছে তা সুনির্দিষ্টভাবে জানতে চেয়েছে।

চতুর্থ সুপারিশ হিসেবে তারা বাংলাদেশে শ্রমিক নির্যাতন বিশেষ করে পোষাক-শ্রমিক নির্যাতন বন্ধ করার আহ্বান জানাতে বলেছেন।

চিঠি দেয়া ১৯ সাংসদ হলেন– সোস্যালিষ্ট ও ডেমোক্রেটিক পার্টির- ব্রান্ডো বেনিফি, নেসা চিল্ডার্স, আনা গোমেজ, ক্যারোলিন গ্রাসওয়ান্ডর হেইঞ্জ, অ্যাগনেস জংরিয়াস, ওয়াজিদ খান, ডেভিড মার্টিন, সোরায়া পোস্ট, জুলি ওয়ার্ড।

ইউরোপীয়ান পিপল’স পার্টির- টুনে কেলাম, অ্যান্টিনিও লোপেজ, জিরি পোসপিসিল।

দ্য অ্যালায়েন্স অব লিবারেল ডেমোক্রেটস ফর ইউরোপ গ্রুপের- ম্যারিতজে সাখি, রিমোন তিমোসা-ই-বেলসেলস।

জিইউফ/এনজেএল এর- স্টেলিয়স কোউলুংলু, মের্জা কেলোনেন এবং ইসিআর এর এন্থেয়া ম্যাকেনটায়ার।

আরসিএন ২৪ বিডি / সময় -১৭৩৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৯