April 13, 2024
জয় বঙ্গবন্ধু অন্তর্ভুক্ত করতে সরকারকে আইনি নোটিশ

জয় বঙ্গবন্ধু অন্তর্ভুক্ত করতে সরকারকে আইনি নোটিশ

Read Time:3 Minute, 52 Second

জয় বাংলা’ বাংলাদেশের জাতীয় স্লোগান হিসেবে জারি করা গেজেট সংশোধন করে ‘জয় বঙ্গবন্ধু’ অন্তর্ভুক্ত করতে সরকারকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের ১১ জন আইনজীবী রবিবার (১৯ জুন) মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন সচিব, শিক্ষা সচিব বরাবরে এ নোটিশ পাঠান।

নোটিশ পাওয়ার ১০ দিনের মধ্যে জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে ঘোষণা করে চলতি বছরের ২ মার্চ জারি করা গেজেট সংশোধন করতে অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় তারা হাইকোর্টে রিট করবেন বলে নোটিশে বলা হয়।

এদিকে আজ সোমবার (২০ জুন) এ বিষয়ে নোটিশ প্রেরণকারী আইনজীবী আব্দুল্লাহ আল হারুন ভূইঁয়া জানান, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় জয় বাংলা এবং জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান একইসঙ্গে উচ্চারিত হয়েছে। একই স্পিরিট নিয়ে দেশ স্বাধীন হয়েছে। দুটি আলাদা কোনো স্লোগান নয়। একই স্লোগান।

এছাড়া ২০১৬ সালের ৩ মে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর নিয়ে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ে বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল বলেছেন, বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ এক এবং অভিন্ন। এই দেশটি বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ। তাইতো মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় সমগ্র বাঙালির মুখে মুখে স্লোগান ছিল ‘এক নেতা একদেশ বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগান আমাদের জাতীয় স্লোগান।

তিনি আরও জানান, চলতি বছরে জয় বাংলাকে জাতীয় স্লোগান হিসেবে গেজেটভূক্ত করা করা হয়েছে। আমরা চাই ওই গেজেট সংশোধন করে জয় বঙ্গবন্ধু অন্তর্ভুক্ত করতে।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড.বশির আহমেদের করা এক রিটের শুনানি নিয়ে ২০১৭ সালের ৪ ডিসেম্বর রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্ট। রুলে ‘জয় বাংলা’ কেন জাতীয় স্লোগান হিসেবে ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়েছিলেন হাইকোর্ট।

ওইদিন বশির আহমেদ বলেছিলেন, জয় বাংলা হচ্ছে আমাদের জাতীয় প্রেরণার প্রতীক। পৃথিবীর ৬০টি দেশে জাতীয় স্লোগান আছে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের দুর্ভাগ্য যে আমরা আমাদের চেতনার সেই ‘জয় বাংলা’ স্বাধীনতার এতদিন পরেও জাতীয় স্লোগান হিসেবে পাই নাই।

তিনি বলেন, জয় বাংলা কোনো দলের স্লোগান নয়, কোনো ব্যক্তির স্লোগান নয়, এটা হচ্ছে আমাদের ন্যাশনাল ইউনিটি। এই স্লোগান দিয়ে একদিন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করেছিলেন। বাঙালি মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল।

এরপর রুল শুনানি শেষে ২০২০ সালের ১০ মার্চ রায় দেন বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান (প্রয়াত) ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

আরসিএন ২৪ বিডি / ২০ জুন ২০২২

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বঙ্গবন্ধু টানেলে দেশের অর্থনীতি আরও গতিশীল হবে -প্রধানমন্ত্রী Previous post শেখ হাসিনা অসীম সাহসী বললেন চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং
উচ্ছেদ আতঙ্কে কাটছে রংপুর রেল বস্তিবাসীর জীবন Next post উচ্ছেদ আতঙ্কে কাটছে রংপুর রেল বস্তিবাসীর জীবন