June 13, 2024
উত্তরবঙ্গে বন্যার আশঙ্কা

উত্তরবঙ্গে বন্যার আশঙ্কা

Read Time:4 Minute, 58 Second

পাহাড়ি ঢল আর ভারী বৃষ্টিপাতে সৃষ্ট বন্যায় গতকাল রবিবার ও দেশের অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে উত্তরাঞ্চলের জেলাগুলোয়।

এমনকি আগামী দুই-তিন দিনের আগে সেখানে পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই। এর মধ্যে গঙ্গা অববাহিকায় ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হওয়ায় নতুন করে বন্যার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে দেশের মধ্যাঞ্চলেও।

তবে সিলেট অঞ্চলে পানি আর বাড়েনি। বরং আজ সোমবার থেকে সিলেট অঞ্চলের পানি নামতে শুরু করবে বলে মনে করেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

গতকাল আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, লালমনিরহাট, নীলফামারী, রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ ও জামালপুর জেলার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে। আর নতুন করে প্লাবিত হতে পারে টাঙ্গাইল, মুন্সীগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলার নিম্নাঞ্চল।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, গত শনিবার ভোর থেকে গতকাল রবিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত সিলেটে মোট বৃষ্টিপাত হয় ৩০৪ মিলিমিটার। আর রবিবার সারাদিনে বৃষ্টির পরিমাণ ছিল ১ মিলিমিটারেরও কম।

ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের হিসাবে, বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিবহুল এলাকা চেরাপুঞ্জিতে গত শনিবার বৃষ্টিপাত ছিল ২৮৯ মিলিমিটার। গতকাল তেমন বৃষ্টি হয়নি।

এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সিলেটের বন্যার মূল কারণই চেরাপুঞ্জির ভারী বৃষ্টি। সেখানকার বৃষ্টি কমে গেছে; আবার সিলেটেও তেমন বৃষ্টি হয়নি। তাই সিলেট অঞ্চলে ধীরে ধীরে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির সম্ভাবনা রয়েছে।

এদিকে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র বলছে, দেশের প্রধান নদ-নদীগুলোর সবগুলোরই পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এর মধ্যে ৯টি নদীর ১৮ পয়েন্টের পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ব্রহ্মপুত্রের পানি দ্রুত বাড়ছে। এর প্রভাবে গাইবান্ধা, রংপুর, নীলফামারী, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম ও জামালপুরে বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হয়েছে। আগামী কয়েক দিন সেখানে পানি আরও বাড়তে পারে।

অপরদিকে বাংলাদেশের উজানের আরেক নদী গঙ্গা অববাহিকায় ভারী বৃষ্টি শুরু হয়েছে। ফলে সেখানে পানি বেড়ে তা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দেশের মধ্যাঞ্চলে প্রবেশ করতে পারে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যবেক্ষণ বলছে, সিলেটে বৃষ্টি কমে গেলেও চট্টগ্রামে বৃষ্টি বাড়তে শুরু করেছে। রবিবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত চট্টগ্রামে ৭১ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। কক্সবাজারসহ আশপাশের এলাকাগুলোতও আজ দিনভর বৃষ্টি চলেছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় তা আরও বাড়তে পারে।

আবহাওয়া সংস্থাগুলোর গাণিতিক মডেলভিত্তিক পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গের স্থানগুলোতে মাঝারি থেকে ভারী এবং কোথাও কোথাও অতিভারী বৃষ্টিপাতের শঙ্কা রয়েছে। ফলে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, গঙ্গা-পদ্মা, সুরমা, কুশিয়ারা, তিস্তা ও ধরলাসহ প্রধান নদ-নীগুলোর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে।

এই সময়ে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারেও বলে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। একই সময়ে তিস্তা নদীর পানি সমতল বিপদসীমার কাছাকাছি অথবা ওপরে অবস্থান করতে পারে।

আরসিএন ২৪ / বিডি ২০ জুন ২০২২

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

উচ্ছেদ আতঙ্কে কাটছে রংপুর রেল বস্তিবাসীর জীবন Previous post উচ্ছেদ আতঙ্কে কাটছে রংপুর রেল বস্তিবাসীর জীবন
ঠান্ডাজনিত রোগে ৮৮ জনের মৃত্যু Next post সারাদেশে ৮৭৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত